ওপার বাংলা

আম্বেদকর কালচারাল কলেজের প্রাণপুরুষ দিলীপ বিশ্বাস ও আচার্যর পক্ষ থেকে সম্মানিত হলেন সাংবাদিক মৃত্যুঞ্জয় সরদার

বর্তমান যুগে অযোগ্য মানুষের ভিড়ে, যোগ্য মানুষগুলো যেন হারিয়ে যাচ্ছে ।আর সেই যোগ্য মানুষকে তুলে ধরতে বাংলার এক যোগ্য ব্যক্তি, এক হাতে কাজ করে চলেছে। বাংলার পিপলস এডুকেশন সোসাইটি, আম্বেদকর কালচারাল কলেজ, আম্বেদকর বিএড কলেজ ও আম্বেদকর ফাউন্ডেশন উদ্যোক্তা কে নিয়ে। সেই ইতিহাস আজ ভাবিয়ে তুলেছে। কেমন ইতিহাস যা অফুরন্ত কথা বলছে, মানুষের জন্য।

ইতিহাস আজীবন কথা বলে। ইতিহাস মানুষকে ভাবায়, তাড়িত করে।প্রতিদিনের উল্লেখযোগ্য ঘটনা কালক্রমে রূপ নেয় ইতিহাসে। সেসব ঘটনাই ইতিহাসে স্থান পায়— যা কিছু ভালো, যা কিছু প্রথম, যা কিছু মানব সভ্যতার আশীর্বাদ-অভিশাপ।

ইতিহাসের দিনপঞ্জি মানুষের কাছে সবসময় গুরুত্ব বহন করে। তেমনি ইতিহাসের গুরুত্ব বহন করছেন মহান কিছু ব্যক্তিত্বদের কথা আজ সুনির্দিষ্টভাবে বলার চেষ্টা করব বাংলার ইতিবাচক ও নেতিবাচক দিকে সামনে রেখে।

বাংলা হল ভারতীয় উপমহাদেশে সৃজনশীল চিন্তাবিদদের অন্যতম প্রধান পীঠস্থান। এই বাংলার মাটিতেই যুগে যুগে জন্ম নিয়েছে শত শত প্রতিভাবান মনীষা। তাদের সমৃদ্ধ চিন্তায়, সৃষ্টিতে ও সৃজনশীলতায় যুগ যুগ ধরে ভারতবর্ষের সাংস্কৃতিক ভান্ডার সমৃদ্ধ হয়ে সংস্কৃতির আকর রত্নভান্ডারে পরিণত হয়েছে।

বাঙালির তীক্ষ্ণ বুদ্ধি, প্রতিভা ও মনীষার দ্বারা অভিভূত হয়েই আধুনিক ভারতবর্ষের অন্যতম সমাজ সংস্কারক গোপালকৃষ্ণ গোখলে একদিন মন্তব্য করেছিলেন “What Bengal thinks today, India thinks tomorrow”. আধুনিক শিক্ষা বিস্তার হোক, সমাজ সংস্কার হোক কিংবা নারী শিক্ষা সবেতেই বাংলা পথ দেখিয়েছে সমগ্র ভারতবর্ষকে। একদিকে বাংলার বুক থেকেই যেমন উঠে এসেছে ভারতবর্ষের প্রথম মহিলা ডাক্তার, অন্যদিকে বাংলায় ভারতবর্ষকে দিয়েছে তার প্রথম মহিলা এভারেস্ট শৃঙ্গ জয়ী।

সংস্কৃতিবান বাংলার এই পবিত্র ভূমি আরো এক মহীয়সী পুরুষ মহান কর্মভূমি। তিনি হলেন আমাদের সকলের প্রিয় চিন্তাবিদ আম্বেদকর গবেষণার প্রাণপুরুষ আম্বেদকর ফাউন্ডেশন ও আম্বেদকর কালচারাল কলেজের সাধারণ সচিব আশ্চর্য দিলীপ বিশ্বাস। দীলিপবাবু আরেকটি পরিচয় আছে তিনি পিপলস এডুকেশন সোসাইটির কর্ণধর দীর্ঘ 30 বছর ধরে মানুষ সেবায় নিয়োজিত আছেন।মানুষ সেবার পাশাপাশি সাংবাদিক কবি, শিল্পীদের সম্মান জানান তিনি। এত বড় মহান মানুষকে নিয়ে এর আগে কেউ কোনদিন কলম ধরেনি।

সরকারি চাকরির পাশাপাশি মানুষ সেবায় নিয়োজিত তিনি। সাধারন ভাবে জীবন যাপন করেন। সকলের প্রাণপুরুষের দিলীপ বিশ্বাস বাবু সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে রয়েছে রতন বারই প্রতিষ্ঠাতা আম্বেদকর বিএড কলেজ। ডক্টর বাবাসাহেব আম্বেদকার শ্রেষ্ঠ ভারতীয় হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে সাধারণ মানুষের কাছে তিনি ভারতীয় সংবিধানের প্রবণতা হিসেবে স্বীকৃতি কিন্তু তার প্রতিভা দশদিগন্ত পরিব্যপ্ত হয়েছিল। আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন প্রাবন্ধিক ও গবেষক দীর্ঘদিনের অভিযানের বাবাসাহেব আম্বেদকর এর জীবন ও দর্শন নামে যে বৃহত্তর আকার গ্রন্থটি রচনা করেছে তার প্রথম পূর্বে উন্মোচিত হয়েছে পরিবারের সন্তান আম্বেদকর কিভাবে ভারত নগ্ন হয়ে উঠলেন তার তথ্যসমৃদ্ধ আনুপূর্বিক বিবরণ।

দ্বিতীয় পর্বে আছে মনের চেতনা চিন্তারও আমেদকার দর্শনের বৈদিক উপস্থাপনা তৃতীয় পর্বে সংযোজিত হয়েছে বাগি আম্বেদকর কয়েকটি গুরুত্ব কয়েকটি ঐতিহাসিক ভাষণ। বাংলা প্রবন্ধ সাহিত্যের এই স্মরণযোগ্য গ্রন্থটি প্রণয়ন করেন পৃথ্বীরাজ সেন আম্বেদকর ফাউন্ডেশন দ্বারা আচার্য সম্মানিত উপাধিতে ভূষিত হয়েছেন এবং সেই উপাধি দিয়েছিলেন সভার প্রাণপুরুষ দিলীপ বিশ্বাস মহাশয়। দীলিপবাবু বাংলার প্রতিভা পূর্ণ প্রত্যেকটি সাংবাদিক ও কবি শিল্পীদের যথাযোগ্য স্থানে সম্মানিত করেন। ঠিক তেমনি ভাবে বাংলার থেকে আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন সাংবাদিক, কবি ও সাহিত্যিক হিসাবে সাহিত্যরত্ন সহ আম্বেদকর সমাজ আচার্য সম্মান দিয়েছেন দক্ষিণ 24 পরগনা জেলার ক্যানিং 2 নম্বর ব্লকের হিদিয়া গ্রামে বসবাস করেন সাংবাদিক মৃত্যুঞ্জয় সরদারকে।

এছাড়াও সমাজের আরো বিশিষ্টজনদের আম্বেদকর সমাজ সম্মান দিয়েছেন প্রাক্তন আইপিএস উপেন বিশ্বাস মহাশয় কে দিলীপ গায়েন, সুরেশ আগরওয়াল সহ একাধিক বিশিষ্ট ব্যক্তিদের। বাউল শিল্পী বাংলায় খ্যাত সরকারি স্বীকৃতিপ্রাপ্ত বাসন্তীর আমঝাড়া গ্রামে বসবাস করেন মানিক সরকারকে মহাপ্রাণ স্মারক সম্মান তুলে দিয়েছেন। আরেকজন বাংলা তথা ভারতবর্ষের নামকরা সমাজসেবী সুরেন্দ্র সিং মহাশয় কে মহাপ্রাণ স্মারক সম্মান দিয়েছেন আম্বেদকর কালচারাল মিশনের কর্ণধর দিলীপ বিশ্বাস মহাশয়।

এখানে শেষ নয় বাংলার চলচ্চিত্র জগৎ ও সংবাদমাধ্যমের আর একজন নামকরা বিখ্যাত প্রযোজক ডক্টর অরুণ কুমার রাজকে মহাপ্রাণ স্মারক সম্মান দিয়েছেন। পেছেনে ভট্টাচার্য সিনেমা তাবালা ডক্টর প্রকাশ মল্লিক, অরুণ বারুরি, ললিতা রাজ।

উল্লেখযোগ্য বিষয় হলো মৃত্যুঞ্জয় সরদারকে ডঃ বি আর আম্বেদকর জন্ম জয়ন্তী উৎসবে বাবাসাহেব আম্বেদকর ফাউন্ডেশন এবং আম্বেদকর কালচারাল কলেজ আম্বেদকর বিএড কলেজ ও পিপলস এডুকেশন সোসাইটির মাধ্যমে আন্তর্জাতিক সাংবাদিক হিসাবে সাংবাদিক রত্ন তুলে দিয়েছিলেন। তবে সাংবাদিক মৃত্যুঞ্জয় সরদারের সৎ নিষ্ঠাবান ও নির্ভীক সাংবাদিক বাংলায় এই ধরনের সাংবাদিকতা অনেকেই করেন না তার লেখনি ও তার কর্ম যোগ্যতা ও সততার প্রতীক হিসাবে পুনরায় আম্বেদকর কালচারাল কলেজের পক্ষ থেকে দ্বিতীয়বারের সাহিত্যিক রত্ন, আম্বেদকর সমাচার চার্য সম্মান ও বাবাসাহেব আম্বেদকর এর জীবন দর্শন বইটি উপহার দিয়েছেন, পিপলস এডুকেশন সোসাইটির কর্ণধর দিলীপ বিশ্বাস। এছাড়াও সবথেকে বড় উপহার তার কর্ম যোগ্যতা ও সততার কারণেই আম্বেদকর কালচারাল কলেজের সহকারী সম্পাদক পদে নিযুক্ত করেছেন সাংবাদিক কবি ও সাহিত্যিক মৃত্যুঞ্জয় সরদারকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button