সারাদেশ

সাংবাদিক ‘লাঞ্ছিত’র ঘটনায় এএসআই ক্লোজড

মোহাম্মদ নুর আলম সিদ্দিকী মানু , সোনারগাঁ টাইমস ২৪ ডটকম :

বন্ধুর বাড়িতে বেড়াতে গিয়ে পুলিশের হাতে লাঞ্ছিত হওয়ার অভিযোগ, লাঞ্চিত সাংবাদিক আরিফুল ইসলাম সাব্বির, তিনি দৈনিক মানবকন্ঠ ও রাইজিং বিডি’র সাভার সংবাদদাতা।

ঘটনার পরেরদিন অভিযুক্ত পুলিশ সদস্যকে প্রত্যাহার করে মানিকগঞ্জ পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করা হয়েছে বলে জানাগেছে।

গত শনিবার রাতে মানিকগঞ্জ জেলার সাটুরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আশরাফুল আলম অভিযুক্তকে পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করার বিষয়টি নিশ্চিত করলেও সাংবাদিক লাঞ্ছিত হওয়ার ঘটনায় ওই পুলিশ সদস্যকে প্রত্যাহারের বিষয়টি এড়িয়ে যান তিনি।

অভিযুক্ত পুলিশ সদস্য সাটুরিয়া থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) মিয়া উজ্জ্বল।

ভুক্তভোগী সাংবাদিক আরিফুল ইসলাম সাব্বির ছাত্র ইউনিয়নের ঢাকা জেলার সাবেক সভাপতি। তিনি ঢাকার জেলার ধামরাই উপজেলার গাঙ্গুটিয়া ইউনিয়নের বারবাড়িয়া গ্রামের আব্দুর রহমানের ছেলে।

তিনি গত বৃহস্পতিবার (১১ ফেব্রুয়ারি) রাত ১২টার দিকে উপজেলার দড়গ্রাম ইউনিয়নের সাফুল্লি গ্রামে বন্ধু মাহবুব আলমের বাড়িতে গিয়ে সড়কে পুলিশি নির্যাতনের শিকার হন বলে অভিযোগ করেন সাংবাদিক আরিফুল ইসলাম সাব্বির।

পরে বিষয়টি যানাযানির এক পর্যায়ে থানার ওসির হস্তক্ষেপে নির্যাতিত ওই সাংবাদিককে গভীর রাতে বাসায় ফেরত পাঠানো হয়।

অভিযুক্ত সাটুরিয়া থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) মিয়া উজ্জ্বল ঘটনার বিষয়ে বলেছিলেন, ‘রাত ১২টা বাজে ওয়ারেন্টের আসামি ধরতে গেছিলাম। অন্ধকারতো ভাই কিছুইতো দেখা যায় না বুজঝেন ভাই। ওই সময়তো ও (সাংবাদিক) দৌড়ায় আসতেছে। আমি বলছি, দৌড়ায় আসতেছেন কে আপনি? মানে আমি যে পোশাক পড়া না’কি দ্যাহাও যায় না। আমারে বলতাছে যে তুই কেডা? আমি বললাম, আমিতো পুলিশ আসামি ধরতে আইছি। কয় আসামিটা ছাইরা দে তুই। মানে এরকম একটু কথাবার্তা হইছে পরে কইছি যে চলেন থানায় যাই। পরে স্যারের গাড়িতে করে রাতে বাসায় দিয়া আসছি।

এবিষয়ে সাটুরিয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি) আশরাফুল আলম বলেন,’ আজ সকালে তাকে (এএসআই) উজ্জ্বলকে পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করা হয়েছে,তবে সাংবাদিক লাঞ্ছিতের অভিযোগে এএসআই উজ্জ্বলকে প্রত্যাহার করা হয়েছে কি’না এমন প্রশ্ন করাতে ওসি বিষয়টি এড়িয়ে যান।

এএসআই উজ্জলকে প্রত্যাহারের বিষয়টি নিশ্চিত করে মানিকগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার রিফাত রহমান শামীম বলেন, এ ঘটনায় তাকে পুলিশ লাইনে নেওয়া হয়েছে। পরে এ বিষয়ে তদন্ত করে পরবর্তীতে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে তিনি জানান ।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button